Home Main Story পাটশিল্প বাঁচাতে মমতার দ্বারস্থ বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ

পাটশিল্প বাঁচাতে মমতার দ্বারস্থ বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ

পাটশিল্প বাঁচাতে মমতার দ্বারস্থ বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ

[ad_1]

সমীরণ পাল ও বিজেন্দ্র সিংহ, কলকাতা ও নয়াদিল্লি: পাট শিল্প নিয়ে ফের সরব ব্য়ারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ। কেন্দ্রীয় বস্ত্রমন্ত্রীকে আগেই চিঠি লিখেছিলেন। এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ চার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ। পাটের দাম বেঁধে দেওয়ার ইস্যুতে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপও চাইলেন। 

কাদের চিঠি:
বাংলা ছাড়াও বিহার, ওড়িশা ও অসমের মুখ্যমন্ত্রীকেও এই ইস্যুতে চিঠি দিয়েছেন বিজেপি সাংসদ। এর আগে পাটের দাম নিয়ে কেন্দ্রীয় বস্ত্রমন্ত্রীকে চিঠি লিখে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কার্যত সাত দিন সময় বেঁধে দিয়েছিলেন অর্জুন সিংহ। 

বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর কাছে কী আবেদন?
এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে লেখা চিঠির শুরুতে বিজেপি সাংসদ বলেছেন, ‘পাটের দাম বেঁধে দেওয়ার কেন্দ্রীয় জুট কমিশনারের সিদ্ধান্তের জেরে আমাদের রাজ্যের পাটচাষি, জুটমিলের কর্মী এবং পাটশিল্পকে যে কতটা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে, তা আপনি অবশ্যই জানবেন।’ শেষে লিখেছেন, ‘বাধ্য হয়ে কেন্দ্রের জুট কমিশনারের স্বেচ্ছাচারী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদের অবস্থান নিতে বাধ্য হয়েছি। আমি অনুরোধ করছি, দয়া করে আপনি কেন্দ্রীয় বস্ত্র মন্ত্রকের এই সিদ্ধান্ত ফিরিয়ে নিতে হস্তক্ষেপ করুন।’

অর্জুনের দাবি:
ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ব্যবস্থা নেবেন কিনা তার বিষয়। আমি একটা লড়াই শুরু করেছি। রোজ রোজ এসে শ্রমিকরা বলছে, আমার চাকরি থাকবে তো? ২০ হাজার কাজ হারিয়েছে। সব মিলিয়ে বেকার ২ লক্ষ ৪০ হাজার। আমি এদের ভোটে জিতেছি। এদের জন্য কিছু না করলে, আমাকে ভোট দেবে না।’ পাট নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খোলার পর থেকেই অর্জুন সিংহের তৃণমূলে ফেরা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা। এদিন যা আরও বেড়েছে! তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ দোলা সেন বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সবাই ভালবাসে। ভুল বুঝতে পেরে অনেকেই ফিরে এসেছেন। অর্জুনদাও একসময় আমাদের সঙ্গে দল করতেন। উনি এলে ওয়েলকাম।’

সিপিএমের কটাক্ষ:
বিষয়টি নিয়ে কটাক্ষ করেছে সিপিএম। সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুজন চক্রবর্তী বলেন, ‘মমতার কাছে আসার চেষ্টা করছেন। পাট শিল্পের জন্য বামেরাই যা করার করেছে।’

খোঁচা বিজেপিরও:
বিজেপি নেতা রাহুল সিন্হা বলেন, ‘কে কাকে চিঠি দিয়েছে বলতে পারব না। পাট শিল্পের ধ্বংসের যিনি কারিগর, তাকে দিয়ে আর যাই হোক পাটশিল্পকে পুনরুজ্জীবিত করা যাবে না।’

তাহলে কী পুরনো শিবিরে ফিরবেন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ? সেই প্রসঙ্গ সরাসরি না উড়িয়ে অর্জুন সিংহ বলেন, ‘দল ছাড়ার কথা প্রথমেই কেন আসছে? অনেকভাবে আন্দোল করা যায়। রাস্তায় নেমে আন্দোলন করা যায়, অনশন করা যায়।’ তিনি যাই বলুন, অর্জুন সিংয়ের চিঠি ঘিরে এখন সরগরম রাজ্য রাজনীতি। 

আরও পড়ুন: বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার মা-মেয়ের পচা-গলা দেহ, চাঞ্চল্য হাওড়ায়

[ad_2]

Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here